ইয়েমেনের রাজধানী সানার আন???তর???জাতিক বিমানবন???দরে আবারো হামলা চালাল সৌদি জোটের বিমান

by  ডেস???ক রিপোর???টার | | Thursday 16th November 2017 |10:45 PM

ইয়েমেনের রাজধানী সানার আন???তর???জাতিক বিমানবন???দরে আবারো হামলা চালাল সৌদি জোটের বিমান

 ইয়েমেনের রাজধানী সানার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আবারো হামলা চালাল সৌদি জোটের বিমান

মঙ্গলবার রাজধানী সানার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হামলা চালায় সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট।সান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মঙ্গলবার সকালে দুইটি হামলা চালানো হয়।হুথি বিদ্রোহীদের এক কর্মকর্তা মোহাম্মদ বলেন, এই হামলার উদ্দেশ্যই ছিলো কিভাবে মানবিক সহায়তা বন্ধ করা যায়। এতে করে অনেক জীবন বাঁচানো ওষুধ ও খাবার আটকা পড়ে গেছে।এতে বিমানবন্দরটির গুরুত্বপূর্ণ ন্যাভিগেশন সিস্টেম নষ্ট হয়ে গেছে। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা। খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার হুতি বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা বিমানবন্দরটিতে দুই দফা বিমান হামলা চালানো হয়। একজন হুতি বিদ্রোহী বলেন, সর্বোচ্চ ক্ষয়ক্ষতি ঘটানোর লক্ষ্যে এই হামলা করা হয়েছে। হুথি নিয়ন্ত্রিত সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানায়, হামলায় ভিওআর/ডিএমই রেডিও সিস্টেম ধ্বংস হয়ে গেছে। ফলে জাতিসংঘের ত্রাণ সহায়তাবহনকারী বিমানকে তারা নির্দেশনা দিতে পারছে না।

যেন লাখ লাখ ইয়েমেনির কাছে জীবন রক্ষাকারী ওষুধ ও খাবার পৌঁছানোর পথ বন্ধ হয়ে যায়। উল্লেখ্য, গত বছরের আগস্ট থেকে এই বিমানবন্দরটি বন্ধ করে রেখেছে সৌদি জোট। তবে জাতিসংঘের স্বল্প সংখ্যক ত্রাণবাহী বিমান সেখানে ওঠানামা করতে পারে। এ ছাড়া সম্প্রতি ইয়েমেনের ওপর নতুন অবরোধ আরোপ করে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন জোট। তারা দেশটিতে প্রবেশের জল, স্থল, আকাশপথ বন্ধ করে দিয়েছে। এতে সেখানে ভয়াবহ খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। বেড়ে গেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য। পাওয়া যাচ্ছে না তেল। শতকরা একশো ভাগ বেড়ে গেছে রান্নাবান্নায় ব্যবহৃত গ্যাসের দাম। ইয়েমেন প্রাত্যহিক চাহিদার শতকরা সত্তরভাগ পণ্য অন্য দেশ থেকে আমদানি করে। সৌদি জোটের অবরোধের কারণে পণ্য আমদানির সুযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। হুতি বিদ্রোহীদের দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সানা বিমানবন্দরে সৌদি জোটের হামলার কারণে ইয়েমেনে মানবিক সহায়তা পৌঁছানোর দ্বার রুদ্ধ হয়ে গেলো। এটি আন্তর্জাতিক নীতিমালার পরিষ্কার লঙ্ঘন। আন্তর্জাতিক নীতিমালা অনুসারে, কোনো দেশের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হামলা চালানো নিষিদ্ধ।
 সোমবার সৌদি আরব বলেছে, তারা ইয়েমেনে সৌদি জোটের নিয়ন্ত্রণাধীন এডেন বিমানবন্দর আন্তর্জাতিক সহায়তা সংস্থার ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত করে দেবে। তবে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা বলছে, এডেন বিমানবন্দর ব্যবহার করে সমস্যার পূর্ণ সমাধান সম্ভব নয়। এ প্রসঙ্গে জাতিসংঘের ইয়েমেন বিষয়ক পরিচালক জর্জ খায়েরি বলেন, তিনি সৌদি জোটের এই হামলায় শঙ্কিত। কারণ এর ফলে ইয়েমেনে মানবিক সহায়তা পৌঁছানো কঠিন হয়ে পড়বে।

 

 

মন্তব্য
  1. image
    Aaron Miller

    good
    2 min

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন