ভারতে ম???সলমানদের সংখ???যা বৃদ???ধিতে চিন???তিত কট???টর হিন???দ???ত???ববাদী বিজেপি নেতা কেন???দ???র

by  ডেস???ক রিপোর???টার | | Saturday 18th November 2017 |01:29 PM

ভারতে ম???সলমানদের সংখ???যা বৃদ???ধিতে চিন???তিত কট???টর হিন???দ???ত???ববাদী বিজেপি নেতা কেন???দ???র

মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেশটির গণতন্ত্রের ক্ষেত্রে হুমকি বলে মনে করছেন ভারতের কট্টর হিন্দুত্ববাদী বিজেপি নেতা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং।ভারতের জনঘনত্বের পরিবর্তন জাতীয়তাবাদের পক্ষে অত্যন্ত বিপজ্জনক বলে দাবি করেন মোদি সরকারের এই মন্ত্রী।তার দাবি, দেশের সংখ্যাগুরু সম্প্রদায় সংখ্যালঘু হওয়ার পথে হাঁটলে সামাজিক ঐক্য ও জাতীয় উন্নয়ন থমকে যাবে।

গিরিরাজ সিং বলেন, ‘জাতীয় স্বার্থে এখনই পরিবার পরিকল্পনা আইন প্রণয়ন করতে হবে। দেশ ভাগের পর এ দেশে মুসলমানদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে অথচ পাকিস্তানে কার্যত নিশ্চিহ্ন হিন্দুরা।’মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেশের পক্ষে বিপজ্জনক বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। এ বিষয়ে গিরিরাজ সিং বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশ, আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও কেরালার ৫৪টি জেলায় হিন্দুরা সংখ্যালঘু। এই বৈপরীত্য দেশের একতা ও অখণ্ডতাকে সঙ্কটে ফেলবে।’'মুসলিমদের তাড়িয়ে আসামকে মিয়ানমার বানাতে চায় বিজেপি' ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসাম থেকে লাখ লাখ মুসলিমকে তাড়িয়ে সেখানে আরো একটি মিয়ানমার তৈরি করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন জমিয়তে উলেমা-ই-হিন্দের প্রবীণ নেতা মাওলানা আরশাদ মাদানি। দিল্লিতে আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।আসামে ‘বৈধ ভারতীয় নাগরিকদের’ যে তালিকা প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে তার সূত্র ধরে মাওলানা মাদানি এ কথা বলেছেন।সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে আসামে বৈধ নাগরিকদের তালিকা বা ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনস (এনআরসি) তৈরির কাজ চলছে। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এই তালিকা প্রকাশ হওয়ার কথা রয়েছে। বৈধ নাগরিকদের তালিকা থেকে রাজ্যের লাখ লাখ মুসলমান বাদ পড়তে পারেন, সেই আশঙ্কা প্রকাশ করে দিল্লিতে এ সপ্তাহে একটি সেমিনার আয়োজন করে ‘দিল্লি অ্যাকশন কমিটি ফর আসাম’।সেমিনারে জমিয়ত নেতা মাওলানা মাদানি বলেন, ‘চার শ’ বছর ধরে যারা বংশপরম্পরায় আসামে বসবাস করছেন তাদের আপনি বাংলাদেশী বলে বাইরে ছুড়ে ফেলে দেবেন, তা আমরা কিছুতেই হতে দেবো না। আমি পরিষ্কার বলতে চাই, তাহলে আগুন জ্বলবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘ভারতীয় নয় বলে এই মুসলিমদের যদি আপনি বের করার চেষ্টা করেন, তাহলে তো বলব আসামের বিজেপি সরকার এটাকেও আর একটা মিয়ানমার বানানোর চেষ্টা করছে।’মাওলানা মাদানির এই বক্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়েছে রাজ্যটির অনেকে। ‘সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ ছড়ানোর’ অভিযোগে তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা হয়েছে। আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল বলেছেন, ‘যেসব শক্তি নাগরিক-তালিকার বিরোধিতা করবে আসাম তাদের শত্রু বলে গণ্য করবে। তাদের বিরুদ্ধে আসাম সরকার হাত গুটিয়ে থাকবে না।’ পুলিশ-প্রধান মুকেশ সহায় জানান, তারা জমিয়ত নেতার বিরুদ্ধে ভিডিও ও অডিও সাক্ষ্যপ্রমাণ জোগাড় করছেন।

আসামের মুসলিমদের সবচেয়ে বড় দল এআইডিইউএফ বলেছে, মাওলানা মাদানির বক্তব্যকে বিকৃত করা হচ্ছে। দলের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আরশাদ মাদানির বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। আমার সন্দেহ, উর্দুতে দেয়া তার বক্তব্য মিডিয়ার সবাই বোঝেনি, তিনি শান্তি বজায় রাখার কথাই বলেছিলেন। উনি শুধু একটা আশঙ্কার কথা বলেছেন, যা অনেকে বুঝতে পারেনি।’

মন্তব্য
  1. image
    Aaron Miller

    good
    2 min

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন