যশোরে গাছে বে???ধে শিক???ষককে মারধর

by  ডেস???ক রিপোর???টার | | Friday 27th October 2017 |12:46 AM

যশোরে গাছে বে???ধে শিক???ষককে মারধর

যশোরের চৌগাছায় গাছে বেঁধে মশিয়ার রহমান(৩২) নামে এক স্কুল শিক্ষককে মারধর করা হয়।তিনি উপজেলার ছোট কাকুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং গয়ড়া গ্রামের আলতাফ হোসেন খানের ছেলে।বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার গয়ড়া গ্রামের রেজাউল ইসলামের চায়ের দোকানের পাশে মেহগনি বাগানে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় তার বৃদ্ধা মা মোমেনা বেগম ও স্ত্রী রুমা আক্তার ঠেকাতে আসলে তাদেরকে বেধড়ক মারধর করা হয়।

আহত মশিয়ার রহমান জানান, গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আতাউল হকের নেতৃত্বে ৬/৭ জন যুবক গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে তার ভাতিজা হৃদয়কে মারপিট করে। এসময় হৃদয়ের কাছ থেকে ১লাখ টাকা ছিনতাই করে নেয় তারা। আহত অবস্থায় হৃদয়কে প্রথমে চৌগাছা হাসপাতাল এবং পরে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় আমার ভাই জিয়াউর রহমান বাদি হয়ে চৌগাছা থানায় মামলা দায়ের করেন। যার নং ১০ তারিখ ৫/১০/২০১৭। মামলাটি তুলে নেয়ার জন্য আসামীরা আমাদের পরিবারকে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিল।’‘বৃহস্পতিবার সকালে আমি ১০ হাজার ৬শ’ ১৫ টাকা নিয়ে ছাগল কিনতে যাচ্ছিলাম। রেজাউলের চায়ের দোকানের পাশে পৌঁছালে সাবেক মেম্বর আতাউল হকের নেতৃত্বে গ্রামের ৭/৮ জন যুবক আমার গতিরোধ করে মামলা তুলে নিতে বলে। রাজী না হওয়ায় এক পর্যায়ে তারা আমাকে পাশের একটি মেহগনি গাছে বেধে নির্যাতন শুরু করে। এসময় সংবাদ পেয়ে আমার স্ত্রী রুমা আক্তার (৩০) ৮০ বয়সী বৃদ্ধা মা মোমেনা খাতুন (৮০) এবং গ্রামের আব্দুল জলিল খানের ছেলে ফিরোজ খান এগিয়ে আসলে তাদেরকেও বেদম মারপিট করে আহত করে। এক পর্যায়ে একটি মটরসাইকেলের শব্দ শুনে পুলিশ এসেছে মনে করে তারা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আমাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।’

আহত স্ত্রী রুমা আক্তার জানিয়েছেন থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শওকত আলী বলেন, পূর্বশত্রুতার জের ধরেই ঘটনাটি ঘটেছে। যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত শাস্তি দাবী করেন তিনি।স্বরুপদহা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি এই মাত্র আপনার কাছ থেকে জানলাম। তবে যদি কেউ এধরনের কাজ করে থাকে সেটা অন্যায় হয়েছে।এদিকে থানায় কেউ কোন অভিযোগ না করায় আইনগত বেবস্থা নিছেননা চৌগাছা থানার সেকেন্ড অফিসার আকিকুল ইসলাম। এবিষয়ে সাবেক ইউপি সদস্য আতাউল হকের বাড়িতে যেয়েও পাওয়া যায়নি এবং ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে ফোন করে বন্ধ পাওয়া গেছে।

মন্তব্য
  1. image
    Aaron Miller

    good
    2 min

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন